নোটিশ :
সংবাদ শিরোনাম
হরিপুরে প্রতিবেশির ঘর থেকে শিশুকন্যার মরদেহ উদ্ধার ! উলিপুরে ২৫’শ টাকার সুবিধাভোগীদের তালিকায় ইউপি সদস্য ও তার স্বামীর মোবাইল নম্বর! ঠাকুরগাঁওয়ে একদিনে সর্বোচ্চ ১৭ জন করোনায় আক্রান্ত; আক্রান্তরা সকলে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ফেরত ছুটি শেষে এই সকল শর্ত মেনে চলতে হবে ১৫ জুন পর্যন্ত দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক শনাক্ত, মৃত্যু ১৫ পীরগঞ্জে ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ ২১ টি পরিবার পেল নগদ অর্থ ও ঢেউটিন ঠাকুরগাঁওয়ে ঝড়ের তাণ্ডবে গাছ-পালা ও ঘর-বাড়ি বিধ্বস্ত শর্ত সাপেক্ষে ঠাকুরগাঁওয়ের সকল দোকানপাট খোলা রাখার সিদ্ধান্ত ঠাকুরগাঁওয়ে নতুন করে চারজন করোনায় আক্রান্ত; আক্রান্ত বেড়ে দাড়ালো ৬৭ জনে ঠাকুরগাঁওয়ে আজ নতুন করে কেউ করোনায় আক্রান্ত হননি; ২৯ জনের নমুনা প্রেরণ

সপ্তম দফায় ৩০ মে পর্যন্ত বাড়ছে সরকারি ছুটি

  • প্রকাশিত: বুধবার, ১৩ মে, ২০২০
  • ৪১ পঠিত:

বাংলার আলো ডেস্ক : প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ফের ছুটি বাড়াচ্ছে সরকার। সপ্তম দফায় আগামী ৩০ মে পর্যন্ত ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। দুই-একদিনের মধ্যেই এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

বুধবার (১৩ মে) বিকালে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতি এখনো নিয়ন্ত্রণে আসেনি। সার্বিক দিক বিবেচনায় আগামী ৩০ মে পর্যন্ত ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এর মধ্যে সাধারণ ছুটি, ঈদুল ফিতরের ছুটি এবং সাপ্তাহিক ছুটিও অন্তর্ভুক্ত থাকবে।’

ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘ছুটি চলাকালে কোনো গণপরিবহন চলবে না। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিজ নিজ কর্মস্থলের জেলা অবস্থান করতে হবে। এসব উল্লেখ করে শিগগির প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।’

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ষষ্ঠ দফায় ১৬ মে পর্যন্ত সাধারণ ছুটি চলছে। সপ্তম দফায় এই ছুটি ৩০ মে পর্যন্ত লম্বা হচ্ছে। এর আগে পঞ্চম দফায় ৫ মে পর্যন্ত সাধারণ ও সাপ্তাহিক ছুটি বাড়ায় সরকার। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে গত ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত প্রথম দফায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। পরে দ্বিতীয় দফায় ছুটি ৫ থেকে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি বাড়ানো হয়। তৃতীয় ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত ও চতুর্থ দফায় ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি লম্বা করা হয়। পরে আরও ১০দিন বাড়িয়ে ৫ মে পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়। আবারও ১০ দিন বাড়িয়ে ১৬ মে পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়।

ছুটির মধ্যেও রপ্তানি পোশাক শিল্প কারখানাসহ সরকারের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়, দপ্তর ও বিভাগগুলো সীমিতকারে খোলা আছে। সরকারি নিষেধাজ্ঞা শিথিল হওয়ায় কিছু কিছু দোকানপাটও খুলেছে। যদিও বড় বড় শপিংমল ও মার্কেটগুলো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্যবসায়ীরা।

সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী, ছুটি চলাকালে জরুরি পরিষেবা অর্থাৎ বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, ফায়ার সার্ভিস, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট ইত্যাদি খাতের কার্যক্রম অব্যাহত আছে। কৃষি পণ্য, সার, কীটনাশক, খাদ্য, শিল্প পণ্য, চিকিৎসা সরঞ্জাম, সংবাদপত্র, জরুরি ও নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য পরিবহন এবং কাঁচা বাজার, খাবার, ওষুধের দোকান ও হাসপাতালও এই ছুটির বাইরে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর :

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
৪০,৩২১
সুস্থ
৮,৪২৫
মৃত্যু
৫৫৯

বিশ্বে

আক্রান্ত
৫,৯০৫,৪১৫
সুস্থ
২,৫৭৯,৬৭৮
মৃত্যু
৩৬২,০২৪
২০১৮-২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত বাংলার আলো বিডি  
Design & Developed By NewsTheme.Com