শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ০২:৫৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :

ভূয়া করোনা সনদ! ৪ ল্যাব বন্ধ, ৮ নির্দেশনা জারি

ডেস্ক রিপোর্ট
  • হালনাগাদ সময় : বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১
  • ৩৯ বার

বিদেশগামী যাত্রীদের করোনাভাইরাস পরীক্ষায় অধিকতর স্বচ্ছতা নিশ্চিতে অনুমোদনপ্রাপ্ত ল্যাবসমূহকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ৮ দফা নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। বিদেশগামীদের করোনা সনদ জালিয়াতির সঙ্গে জড়িত বেসরকারি ৪টি ল্যাব বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর অনুমোদনপ্রাপ্ত ল্যাবগুলোকে ৮ দফা নির্দেশনা জারি করেছে। নির্দেশনাগুলো হলো-

১. পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত বিদেশগামী যাত্রীদের কোভিড-১৯ নমুনা সংগ্রহের জন্য ল্যাবসমূহের নিজস্ব ভবনের বাইরে স্থাপিত সকল ধরনের নমুনা সংগ্রহের কেন্দ্র বন্ধ থাকবে।

২. বিদেশগামী যাত্রীদের নমুনা কোনো অবস্থাতেই বাসা/বাড়ি থেকে সংগ্রহ করা যাবে না।

৩. বিদেশগামী যাত্রীদের নমুনা সংগ্রহের সময় মূল পাসপোর্ট যাচাই করে পাসপোর্ট নম্বর উল্লেখপূর্বক নমুনা সংগ্রহের ফরম পূরণ করতে হবে। কোনোক্রমেই পাসপোর্টের ফটোকপি গ্রহণযোগ্য হবে না।

৪. বিমানবন্দরে বিদেশগামী যাত্রীদের কোভিড-১৯ পরীক্ষা সনদ পাসপোর্ট নম্বর দ্বারা যাচাই করা হবে। শুধু টেলিফোন/মোবাইল নম্বর প্রমাণক হিসেবে গ্রহণযোগ্য হবে না।

৫. সাত (০৭) দিনের মধ্যে কোনো পজেটিভ রিপোর্ট থাকলে ওই যাত্রীকে দেশত্যাগের অনুমতি দেওয়া যাবে না।

৬. কোনো বিদেশগামী যাত্রীর কোভিড-১৯ পজেটিভ হলে, তিনি কমপক্ষে ৭ দিন পরে শুধুমাত্র সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত ল্যাবে পুনরায় পরীক্ষা করবেন এবং পরবর্তীতে যদি নেগেটিভ সনদপ্রাপ্ত হন সেক্ষেত্রে দেশত্যাগ করতে পারবেন।

৭. কোনো আরটি-পিসিআর ল্যাবের ব্যাপারের কোনোধরনের অভিযোগ উত্থাপিত হলে ল্যাবটির কার্যক্রম সাময়িকভাবে স্থগিত করে তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী অনুমোদনের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

৮. কোন বিদেশগামী যাত্রীর কোভিড-১৯ পরীক্ষা করার ক্ষেত্রে সরকারি-বেসরকারি উভয় স্থানে প্রথমে পাসপোর্ট নম্বর দিয়ে যাচাই করে দেখতে হবে যে, সে গত ৪৮ ঘন্টার মধ্যে অন্য কোথাও আরটি-পিসিআর পরীক্ষা করেছে কিনা। করে থাকলে এবং পজেটিভ হলে তাকে ৭ দিন পর্যন্ত পুনরায় আরটি পিসিআর পরীক্ষার সুযোগ দেয়া যাবে না।

বেসরকারি ৪ কোভিড ল্যাবে বিদেশগামীদের করোনা পরীক্ষা বন্ধ

এদিকে বিদেশগামী যাত্রীদের কয়েকজনের করোনা সনদ জাল ধরা পড়লে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কঠোর নজরদারীতে আসে আরটি-পিসিআর ল্যাবগুলো। করোনা সনদ জালিয়াতির অভিযোগে চারটি বেসরকারি কোভিড ল্যাবের বিদেশগামী যাত্রীদের আরটি-পিসিআর পরীক্ষা ও নমুনা সংগ্রহের কার্যক্রম সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। প্রতিষ্ঠান চারটি হলো- ক) সিএসবিএফ হেলথ সেন্টার, খ) আল-জামী ডায়গনস্টিক সেন্টার, গ) স্টিমজ হেলথ কেয়ার বিডি লিঃ ও ঘ) মেডিনোভা মেডিকেল সার্ভিসেস লিমিটেড (মিরপুর ব্রাঞ্চ)।

এছাড়া ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ কর্তৃক পরিচালিত মহাখালীর নমুনা সংগ্রহের বুথের কার্যক্রম স্থগিতসহ প্রতিষ্ঠানটিকে সতর্ক করা হয়েছে। গত বুধবার সনদ জালিয়াতির অভিযোগে প্রতিষ্ঠানগুলোকে সাময়িক বন্ধের আদেশ জারি করা হয়।

বিদেশগামী যাত্রীদের ভোগান্তি লাঘবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর হতে ৫২টি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে কোভিড নমুনা পরীক্ষার অনুমতি প্রদান করেছিল। বেসরকারি ল্যাবগুলো নমুনা সংগ্রহের জন্য নিজস্ব প্রতিষ্ঠানের বাইরেও বিভিন্ন স্থানে বুথ স্থাপন করে। কমিশনের আশায় একটি চক্র করোনা টেস্টের রেজাল্ট প্রাপ্তি ও নিশ্চিত নেগেটিভ রেজাল্টের প্রলোভন দেখিয়ে বিদেশগামী যাত্রীদের নিজেদের ল্যাবে নিয়ে যায়। এছাড়াও, ওই চক্র পজেটিভ রেজাল্ট পাওয়া অনেক যাত্রীদের ২৪ ঘণ্টার ভিতর পুনরায় নেগেটিভ রেজাল্ট আনার ব্যবস্থার কথাও বলে ধোকা দিচ্ছেলেন বিদেশগামী যাত্রীদের। প্রতিজন যাত্রীর জন্য ঐ চক্র মাথাপিছু ৫০০-১০০০ টাকা পর্যন্ত পেয়ে থাকে। বাংলাদেশ থেকে কোভিড নেগেটিভ সনদ নিয়ে যাওয়া কয়েকজন যাত্রী বিদেশের বিমানবন্দরে কোভিড পরীক্ষায় পজেটিভ ফল আসায় করোনা টেস্টের কার্যক্রমে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত- বাংলার আলো বিডি
themesba-lates1749691102