মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১২:০৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ঠাকুরগাঁওয়ে দুর্গাপূজা উপলক্ষে মির্জা ফয়সাল আমিনের এর পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদান মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে দুর্গাপূজোর মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু ঠাকুরগাঁওয়ে সংঘর্ষ এড়াতে দুর্গা মন্দিরে ১৪৪ ধারা জারি ডিবির অভিযানে ১৫০ বোতল ফেন্সিডিলসহ ঠাকুরগাঁওয়ে নারী মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ঠাকুরগাঁওয়ে পুকুর থেকে শিশুর মরদেহ উদ্ধার! ঠাকুরগাঁওয়ে করোনার কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া দরিদ্রদের মাঝে গরুর বাছুর বিতরণ ঠাকুরগাঁওয়ে মায়ের কবরে ছেলের লাশ উদ্ধার মামলায় গ্রেফতার ২ অভিনন্দন মোখলেছুর রহমান খান ভাসানী ডিআইজি হাবিবুর রহমান ও এএসপি এনায়েত করিমের যৌথ প্রচেষ্টায় কবরস্থান পেলো বেদে সম্প্রদায় ঠাকুরগাঁওয়ে ৭ দফা দাবিতে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

ভারতে আটক তাবলীগের ১৪ জনকে বাংলাদেশে ফেরত

বাংলার আলো ডেস্ক
  • হালনাগাদ সময় : শনিবার, ৮ আগস্ট, ২০২০
  • ৬৪ বার

ভারতে আটক তাবলীগ জামায়াতের ২৬৫ জন বাংলাদেশি সদস্যের মধ্যে ১৪ জনকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন তাদের পাসপোর্টের কার্যক্রম শেষ করে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

ফেরত আসা প্রত্যেকে পাসপোর্টধারী যাত্রী ছিলেন। তারা ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলার বাসিন্দা। তাদেরকে ১৪ দিনের জন্য যশোরের ঝিকরগাছার গাজীর দরগাহের প্রাতিষ্ঠানিক হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

ইমিগ্রেশন পুলিশ সূত্র জানায়, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ২৬৫ জন তাবলীগ জামায়াতের কর্মীরা পাসপোর্ট যোগে ভারতে যান। ভারতে করোনা প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার সময় তাবলীগ সদস্যরা সেখানে অবস্থান করছিলেন।

তাবলীগের সদস্যদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আসে করোনা সংক্রমণ ছড়াচ্ছে তারা। পরে সে দেশের পুলিশ তাদের আটক করে উত্তর প্রদেশের কেন্দ্রীয় জেলখানায় পাঠায়। সেখানকার আদালত তাদের ৪০ দিনের সাজা দেয়। সাজার মেয়াদ শেষ হওয়ায় দুই দেশের রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে আলোচনার পর তারা দেশে ফিরে আসেন।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ওসি মহাসিন খান বলেন, ভারতে আটক তাবলীগ জামায়াতের ১৪ বাংলাদেশী সদস্যকে ভারত আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছে।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের স্বাস্থ্য বিভাগের মেডিকেল অফিসার হাবিবুর রহমান জানান, ফেরত আসা তাবলীগ সদস্যদের প্রাথমিকভাবে শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে। যেহেতু তারা দীর্ঘদিন ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলে গণজমায়েতের মধ্যে ছিলেন। তারপর তারা ৪০ দিনের সাজাও ভোগ করেছেন। তাদের শরীরে করোনাভাইরাস আছে কিনা সেজন্য ১৪ দিনের জন্য সরকারি তত্ত্বাবধানে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। শঙ্কামুক্ত হলে ১৪ দিন পর পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে কর্তৃপক্ষ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৪৩,৫৮০,০২০
সুস্থ
৩২,০৪৯,৮২০
মৃত্যু
১,১৬২,০৮৬
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত- বাংলার আলো বিডি
themesba-lates1749691102