শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:৩৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ভুল্লিতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জমি অবৈধ দখলের ঘটনায় সন্ত্রাসী হামলা, আহত-৩ যৌতুক না দিতে পারায় গৃহবধূকে বিষ খাইয়ে হত্যা বিচ্ছেদের খবর শুনেই শবনম ফারিয়াকে অসংখ্য বিয়ের প্রস্তাব! এবার ম্যারাডোনার জার্সি পরে হলুদ কার্ড দেখলেন তেভেজ প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে প্রেম, আপত্তিকর ভিডিও করে টাকা আদায় স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ৫ জনের ফাঁসির আদেশ ঘুষ নেওয়া কুড়িগ্রামের সেই ভূমি কর্মকর্তা সাময়িক বরখাস্থ কুড়িগ্রাম পৌর নির্বাচনে ৫জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা কুড়িগ্রামে স্বাধীনতা বিরোধী ও রাজাকার পূত্রের মনোনয়ন বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ ঠাকুরগাঁওয়ে নানা আয়োজনে হানাদার মুক্ত দিবস পালিত

প্রভাব খাটিয়ে একই ব্যক্তি দুই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
  • হালনাগাদ সময় : রবিবার, ১৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৯ বার

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ায় প্রধানমন্ত্রীর মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত ‘শেখ ফজিলাতুন্নেছা দাখিল মাদ্রাসা’ নিয়ে চলছে তুঘলকী কান্ড। এই প্রতিষ্ঠান থেকে ২০১৮ সালের ৩০জুন স্বেচ্ছায় ইস্তফা প্রদান করেন সাবেক সুপার মো. আমিনুল ইসলাম।

এছাড়াও তিনি ২০০৪ সাল থেকে একই উপজেলার মধ্যকাশিপুর দাখিল মাদ্রাসায় সহকারি মৌলভী পদে যোগদান করে বেতনভাতাদি উত্তোলন করে আসছেন। তার ইনডেক্স নং-২০০৬৫৫২৮। ২০২০ সালের ১৪ জানুয়ারি শেখ ফজিলাতুন্নেছা দাখিল মাদ্রাসাটি জাতীয়করণ ঘোষণা করা হয়। সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন মো. শাহনুর আলম। কিন্তু জাতীয়করণ ঘোষণার পর সাবেক সুপার আমিনুল ইসলাম কিছু দাঙ্গাবাজ লোকজন নিয়ে মাদ্রাসায় ঢুকে জোড়পূর্ব সুপারের চেয়ারে বসে পরেন এবং সমস্ত কাগজপত্র হাতিয়ে নেন।
এরপর মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও তার পিতা আব্দুর রহমানের সাথে যোগসাজস করে ব্যাকডেটে নিজে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে অবৈধ পন্থায় পূনরায় সুপার পদে নিয়োগ নেন। এসময় নতুন করে পূর্বের শিক্ষকদের পদে গোপনে নতুন করে শিক্ষক নিয়োগ ও যোদানপত্র দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে দেন। মাদ্রাসা শুরুর সময় প্রকৃত শিক্ষকগণের কাছেও মাদ্রাসা উন্নয়নের জন্য ইতিপূর্বে তিনি ৩২লক্ষ ৩৮হাজার টাকা নিয়েছিলেন। এখন প্রকৃত শিক্ষদেরকেও তিনি ভয়ভীতি দেখিয়ে মাদ্রাসায় প্রবেশে বাঁধা প্রদান করছেন।
এনিয়ে জেলা শিক্ষা অফিসার এবং জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার জবরদখলকারী আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে দুটি রিপোর্ট মহাপরিচালক মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডে প্রেরণ করা হয়। এখন পর্যন্ত কোন সমাধান না হওয়ায় বর্তমান সুপার ও শিক্ষকগণ মাদ্রাসায় ঢুকতে না পেরে রবিবার সকালে কুড়িগ্রাম প্রেসক্লাবে সৈয়দ শামসুল হক মিলনায়তনে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করে শোনান মাদ্রাসার সুপার মো. শাহানুর আলম। সাংবাদিক সম্মেলনে স্বেচ্ছাচারী ও জবরদখলকারী আমিনুল ইসলামের শাস্তি ও মাদ্রাসাটিতে শিক্ষার পরিবেশ ফিরিয়ে আনার দাবি জানানো হয়।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৬৫,৫২৮,১৩৩
সুস্থ
৪৫,৩৭১,০৭৩
মৃত্যু
১,৫১১,৭২৬
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত- বাংলার আলো বিডি
themesba-lates1749691102