বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ০৪:৩৬ অপরাহ্ন

ঠাকুরগাঁওয়ে মা ও দুই সন্তানের মৃত্যু জনমনে জাল ছড়াচ্ছে

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি
  • হালনাগাদ সময় : রবিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০
  • ৩৪ বার
ঠাকুরগাঁওয়ে মা ও দুই সন্তানের মৃত্যু জনমনে জাল ছড়াচ্ছে

ঠাকুরগাঁও জেলার রাণীশংকৈল উপজেলার ভরনিয়া শিয়ালডাঙ্গী গ্রামে মা ও দুই সন্তানের মৃত্যু রহস্য জনমনে জাল ছড়াচ্ছে।

এলাকার লোকজনের মধ্যে দুধরণের মত পাওয়া গেলেও খুনের সন্দেহ কেউ উড়িয়ে দিতে পারছেন না।
প্রশাসন, পুলিশ, তদন্তকারী, স্থানীয় লোকজন সুরতহাল দেখে কেউই এটিকে আত্মহত্যা বলতে পারেননি।
তবে পুলিশ বলছেন ময়নাতদন্তের রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছেনা। ঘটনার দিন ৪ জনকে আটক করা হলেও

১ দিন পর ১৬ অক্টোবর তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে কেউ মামলা করেনি। পুলিশ ইউডি মামলা করে লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করেছে। শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) রাতে পারিবারিক গোরস্থানে ৩ জনকে দাফন করা হয়।
ঠাকুরগাঁও জেলার রাণীশংকৈল উপজেলার ভররিয়া শিয়ালডাঙ্গী গ্রামের আকবর হোসেনের স্ত্রী আরিফা আক্তার( ৩২) তার মেয়ে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী আঁখি আক্তার( ১০) ও ছেলে আরাফাত (৪) এর মৃতদেহ ১৫ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ভোর ৬ টার দিকে বাড়ির পাশে একটি ডোবায় পাওয়া যায়।

স্থানীয় লোকজন পানি থেকে লাশ তুলে আনার পর তিনজনের মুখে বিষের গন্ধ পায়। পুলিশ সিআইডি র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আলামত সংগ্রহ করে তদন্ত কাজ করছেন। গতকাল ১৬ অক্টোবর ঐ ডোবার পানি ছেঁকে ফেলা হয়েছে। তদন্তকারীরা ডোবা থেকে ২ টি বোতল আর একটি সেন্ডেল আলামত হিসেবে পেয়েছেন।

ঘটনার দিন ১৫ অক্টোবর রাতে আঁখির খাতা থেকে একটি চিঠি উদ্ধারের কথা জানিয়েছেন ওসি জাহিদ ইকবাল। সেই চিঠি তিনি দেখাচ্ছেন না বা এ ব্যাপারে ক্যামেরার সামনে কথাও বলছেন না। তবে তার মতে চিঠিতে আরিফা লিখেছেন, আমার আত্মহত্যার জন্য কেউ দায়ী নয়।

এদিকে আরিফার ভাই চিঠি উদ্ধারের বিষয়টি উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, আমি চিঠিটি দেখেছি। সেটি আমার বোনের লেখা নয়। এটি সৃষ্টি করা একটি কাগজ। তিনি তার বোনের হত্যার বিচার চান। এলাকার অনেকে আকবরের সম্পর্কে ভালো ধারণা পোষণ করলেও মৃত্যুর রহস্য তাদের এলোমেলো করে দিচ্ছে। তাদের মতে, বিষ খেলে মানুষ ছটফট করবে বাঁচার চেষ্টা করবে চিৎকার চেচামেচি করবে।

কিন্তু পাশের প্রতিবেশিরাও কোন চিৎকার চেচামেচির শব্দ শোনেননি। তারপর বিষ খেলে ৩ জন মানুষ ডোবায় পড়ে কিভাবে? তাছাড়া ডোবায় তেমন পানি নেই। যারা ঐ পানিতে নেমেছেন তাদের মতে সেখানে কোমর পানি ছিল। কোমর পানিতে ডুবে মারা যাওয়ার ঘটনাও অস্বাভাবিক।

এই তিনজনের মৃত্যু রহস্য নিয়ে গতকাল দিনভর শতশত মানুষ ঐ বাড়ির সামনে জড়ো হয়। তারা ভিড় করে নানা জল্পনা কল্পনা করেন। তবে তারা পরিস্কার করে কিছু বলতে রাজি হননি। অনেকেই তিন জনের মৃত্যু খুন হতে পারে ভেবে অযথা এ বিষয়ে জড়াতে চাননা। তবে একটি মহল বিষয়টি নিয়ে আপোষ করার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে গুঞ্জন শোনা যায় ঐ গ্রামে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৪১,১০৫,১১১
সুস্থ
৩০,৬৫৯,৫৯৩
মৃত্যু
১,১৩০,৬১৯
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত- বাংলার আলো বিডি
themesba-lates1749691102