শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১১:১৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ঠাকুরগাঁওয়ে যাত্রা শুরু করল অনলাইন ভিত্তিক খাবার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ‘ফুডপ্যান্ডা’ ঠাকুরগাঁওয়ে দুর্গাপূজা উপলক্ষে মির্জা ফয়সাল আমিনের এর পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদান মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে দুর্গাপূজোর মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু ঠাকুরগাঁওয়ে সংঘর্ষ এড়াতে দুর্গা মন্দিরে ১৪৪ ধারা জারি ডিবির অভিযানে ১৫০ বোতল ফেন্সিডিলসহ ঠাকুরগাঁওয়ে নারী মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ঠাকুরগাঁওয়ে পুকুর থেকে শিশুর মরদেহ উদ্ধার! ঠাকুরগাঁওয়ে করোনার কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া দরিদ্রদের মাঝে গরুর বাছুর বিতরণ ঠাকুরগাঁওয়ে মায়ের কবরে ছেলের লাশ উদ্ধার মামলায় গ্রেফতার ২ অভিনন্দন মোখলেছুর রহমান খান ভাসানী ডিআইজি হাবিবুর রহমান ও এএসপি এনায়েত করিমের যৌথ প্রচেষ্টায় কবরস্থান পেলো বেদে সম্প্রদায়

কুড়িগ্রামে তিস্তার ভাঙন রোধ ও স্পার রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন

বাংলার আলো ডেস্ক
  • হালনাগাদ সময় : শুক্রবার, ২৪ জুলাই, ২০২০
  • ৪২ বার

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার বিদ্যানন্দ ইউনিয়নে তিস্তা নদীর ভাঙন রোধে বুড়িরহাট ও গাবুর হেলান স্পার ভাঙন রোধে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

শুক্রবার সকালে ভাঙন কবলিত গাবুর হেলান স্পারে ঘন্টাখানিক মানববন্ধন করা হয়। মানববন্ধনে এলাকাবাসী প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে, ভাঙন কবলিত সন্তানদের রক্ষার জন্য এই এলাকায় নদী খনন ও স্থায়ী বাঁধ নির্মাণের দাবি জানান।

এসময় এলাকাবাসীর পক্ষে বক্তব্য রাখেন সমাজকর্মী হক্কানী মিয়া, ইঞ্জিনিয়ার রেজওয়ান বাদশা, মোয়াজ্জেম বদিয়ত আলী, দিনমজুর মন্টু মিয়া, আনিছুর রহমান, আলেমা বেগম প্রমুখ।

এলাকাবাসী জানান, ১৯৯৮ সালে ৩৫০ মিটার দীর্ঘ স্পারটি তিস্তার ভাঙন রোধে নির্মাণ করা হয়। গত ৮দিন ধরে এখানে ভাঙন চলছে। ভাঙন রোধে পানি উন্নয়ন বোর্ড কাজ করলেও তারা গাফিলতি করছে বলে অভিযোগ তোলা হয়। এলাকাবাসী স্বেচ্ছাশ্রমে বালু সংগ্রহ করে বস্তায় ভরালেও পানি উন্নয়ন বোর্ডের লোকজন দুর্ভোগ কবলিত এলাকায় এসে খোঁজখবর নিচ্ছেন না। তারা বস্তাগুলো শেলাই করে স্পারের মাথায় ফেলার ব্যবস্থা করছে না। ভাঙন রোধে স্থায়ী কাজের দাবিতে মানববন্ধন আয়োজন করে এলাকাবাসী।

স্থানীয়রা জানান, ভাঙনরোধ করা না গেলে গাবুর হেলান মসজিদ, গাবুর হেলান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাজাপাড়া বালিকা দাখিল মাদ্রাসা, সোলাগাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, তৈয়ব খা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রাঘব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মহাসিনিয়া দাখিল মাদ্রাসাসহ বেশ কয়েকটি মসজিদ. মন্দির, ঈদগাহ মাঠ, কবরস্থান, রাইচমিল এবং শত শত বাড়িঘর নদীগর্ভে চলে যাবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৪৬,১৮২,৬৩৬
সুস্থ
৩৩,৩৯০,২০৮
মৃত্যু
১,১৯৭,৫০৭
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত- বাংলার আলো বিডি
themesba-lates1749691102