মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৪৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ঠাকুরগাঁওয়ে দুর্গাপূজা উপলক্ষে মির্জা ফয়সাল আমিনের এর পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদান মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে দুর্গাপূজোর মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু ঠাকুরগাঁওয়ে সংঘর্ষ এড়াতে দুর্গা মন্দিরে ১৪৪ ধারা জারি ডিবির অভিযানে ১৫০ বোতল ফেন্সিডিলসহ ঠাকুরগাঁওয়ে নারী মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ঠাকুরগাঁওয়ে পুকুর থেকে শিশুর মরদেহ উদ্ধার! ঠাকুরগাঁওয়ে করোনার কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া দরিদ্রদের মাঝে গরুর বাছুর বিতরণ ঠাকুরগাঁওয়ে মায়ের কবরে ছেলের লাশ উদ্ধার মামলায় গ্রেফতার ২ অভিনন্দন মোখলেছুর রহমান খান ভাসানী ডিআইজি হাবিবুর রহমান ও এএসপি এনায়েত করিমের যৌথ প্রচেষ্টায় কবরস্থান পেলো বেদে সম্প্রদায় ঠাকুরগাঁওয়ে ৭ দফা দাবিতে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

ইউএনও’র সামনে সাংবাদিকদের পেটালেন পুলিশ!

সংবাদদাতার নাম
  • হালনাগাদ সময় : রবিবার, ২৯ মার্চ, ২০২০
  • ৫৯ বার
ইউএনও’র সামনে সাংবাদিকদের পেটালেন পুলিশ!

বরিশালঃ করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) প্রচার-প্রচারণার ছবি তুলতে গিয়ে পুলিশের বেধড়ক লাঠিপেটার শিকার হয়েছেন বরিশালের দুই ফটো সাংবাদিক। আহতদের অভিযোগ- কোনো কারণ ছাড়াই তাদের পেটানো হয়। গত শুক্রবার সন্ধ্যার পর বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ঘটনাটি ঘটলেও গতকাল শনিবার রাতে তা প্রকাশ করেন ভুক্তভোগীরা।

পুলিশের নির্যাতনের শিকার দুই ফটোসাংবাদিক হলেন- বরিশালের আঞ্চলিক দৈনিক দেশ জনপদ পত্রিকার শাফিন আহমেদ রাতুল ও দৈনিক দখিনের মুখ পত্রিকার নাসির উদ্দিন।

এদিকে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যদের খুঁজে বের করে শাস্তির আওতায় আনার কথা জানিয়েছেন বরিশাল মহানগর পুলিশ কমিশনার।

আহত ফটোসাংবাদিক শাফিন আহমেদ রাতুল জানান, বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোশারেফ হোসেন গত শুক্রবার সন্ধ্যায় জনসচেতনতামূলক প্রচারণা চালাতে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় যান। এ সময় তার বহরে পুলিশের দুটি পিকআপ ছিল। বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় পৌঁছানোর পর মাস্ক পরিহিত একজন পুলিশ সদস্য তাদের পরিচয় জানতে চান। এ সময় তারা নিজেদের ফটো সাংবাদিক হিসেবে পরিচয় দেন। এরপরও ওই পুলিশ সদস্য তাদের বেদম লাঠিপেটা করেন। বিষয়টি প্রথমে তারা লোকলজ্জার কারণে চেপে যান। তবে পরে রাগে-ক্ষোভে তা সহকর্মীদের জানান।

এদিকে বিষয়টি বরিশালের গণমাধ্যম কর্মীদের মাঝে জানাজানি হলে তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। বরিশাল প্রেসক্লাবের সভাপতি এস এম জাকির হোসেন বলেন, ‘কর্মরত অবস্থায় দুই সাংবাদিককে নির্যাতনের ঘটনা অমানবিক। ন্যাক্কারজনক এই ঘটনার সাথে জড়িতদের শাস্তির দাবি করছি।’

বিষয়টি নিয়ে বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোশারেফ হোসেন বলেন, ‘আমার সাথে পুলিশ ছিল। তবে আমি কাউকে পেটাতে নির্দেশ দেইনি। কোন পুলিশ সদস্য সাংবাদিক পিটিয়েছে তাও আমি দেখিনি। তারপরও যদি সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটে, তাহলে আমি দুঃখ প্রকাশ করছি।’

বরিশালের জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান বলেন, ‘বিষয়টি আমি শনিবার রাতে জেনেছি।’ আহত দুই সাংবাদিকের দায়িত্ব নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমার প্রতি আস্থা রাখুন, ঘটনার সাথে জড়িত অভিযুক্তদের শাস্তির আওতায় আনা হবে।’

বরিশাল মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান বলেন, ‘বর্তমান সঙ্কটময় পরিস্থিতিতে শুধু সাংবাদিক নয়, সাধারণ জনগণের সাথেও দুর্ব্যবহার কাম্য নয়। দুই সাংবাদিককে লাঠিপেটার খবর শুনেছি। অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যদের শনাক্ত করে শাস্তির আওতায় আনা হবে।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৪৩,৭৭৪,৮২০
সুস্থ
৩২,১৭৮,১৭৭
মৃত্যু
১,১৬৪,৪৮৬
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত- বাংলার আলো বিডি
themesba-lates1749691102