নোটিশ :
সংবাদ শিরোনাম
হরিপুরে প্রতিবেশির ঘর থেকে শিশুকন্যার মরদেহ উদ্ধার ! উলিপুরে ২৫’শ টাকার সুবিধাভোগীদের তালিকায় ইউপি সদস্য ও তার স্বামীর মোবাইল নম্বর! ঠাকুরগাঁওয়ে একদিনে সর্বোচ্চ ১৭ জন করোনায় আক্রান্ত; আক্রান্তরা সকলে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ফেরত ছুটি শেষে এই সকল শর্ত মেনে চলতে হবে ১৫ জুন পর্যন্ত দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক শনাক্ত, মৃত্যু ১৫ পীরগঞ্জে ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ ২১ টি পরিবার পেল নগদ অর্থ ও ঢেউটিন ঠাকুরগাঁওয়ে ঝড়ের তাণ্ডবে গাছ-পালা ও ঘর-বাড়ি বিধ্বস্ত শর্ত সাপেক্ষে ঠাকুরগাঁওয়ের সকল দোকানপাট খোলা রাখার সিদ্ধান্ত ঠাকুরগাঁওয়ে নতুন করে চারজন করোনায় আক্রান্ত; আক্রান্ত বেড়ে দাড়ালো ৬৭ জনে ঠাকুরগাঁওয়ে আজ নতুন করে কেউ করোনায় আক্রান্ত হননি; ২৯ জনের নমুনা প্রেরণ

ইউএনও’র সামনে সাংবাদিকদের পেটালেন পুলিশ!

  • প্রকাশিত: রবিবার, ২৯ মার্চ, ২০২০
  • ২৭ পঠিত:
ইউএনও’র সামনে সাংবাদিকদের পেটালেন পুলিশ!

বরিশালঃ করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) প্রচার-প্রচারণার ছবি তুলতে গিয়ে পুলিশের বেধড়ক লাঠিপেটার শিকার হয়েছেন বরিশালের দুই ফটো সাংবাদিক। আহতদের অভিযোগ- কোনো কারণ ছাড়াই তাদের পেটানো হয়। গত শুক্রবার সন্ধ্যার পর বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ঘটনাটি ঘটলেও গতকাল শনিবার রাতে তা প্রকাশ করেন ভুক্তভোগীরা।

পুলিশের নির্যাতনের শিকার দুই ফটোসাংবাদিক হলেন- বরিশালের আঞ্চলিক দৈনিক দেশ জনপদ পত্রিকার শাফিন আহমেদ রাতুল ও দৈনিক দখিনের মুখ পত্রিকার নাসির উদ্দিন।

এদিকে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যদের খুঁজে বের করে শাস্তির আওতায় আনার কথা জানিয়েছেন বরিশাল মহানগর পুলিশ কমিশনার।

আহত ফটোসাংবাদিক শাফিন আহমেদ রাতুল জানান, বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোশারেফ হোসেন গত শুক্রবার সন্ধ্যায় জনসচেতনতামূলক প্রচারণা চালাতে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় যান। এ সময় তার বহরে পুলিশের দুটি পিকআপ ছিল। বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় পৌঁছানোর পর মাস্ক পরিহিত একজন পুলিশ সদস্য তাদের পরিচয় জানতে চান। এ সময় তারা নিজেদের ফটো সাংবাদিক হিসেবে পরিচয় দেন। এরপরও ওই পুলিশ সদস্য তাদের বেদম লাঠিপেটা করেন। বিষয়টি প্রথমে তারা লোকলজ্জার কারণে চেপে যান। তবে পরে রাগে-ক্ষোভে তা সহকর্মীদের জানান।

এদিকে বিষয়টি বরিশালের গণমাধ্যম কর্মীদের মাঝে জানাজানি হলে তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। বরিশাল প্রেসক্লাবের সভাপতি এস এম জাকির হোসেন বলেন, ‘কর্মরত অবস্থায় দুই সাংবাদিককে নির্যাতনের ঘটনা অমানবিক। ন্যাক্কারজনক এই ঘটনার সাথে জড়িতদের শাস্তির দাবি করছি।’

বিষয়টি নিয়ে বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোশারেফ হোসেন বলেন, ‘আমার সাথে পুলিশ ছিল। তবে আমি কাউকে পেটাতে নির্দেশ দেইনি। কোন পুলিশ সদস্য সাংবাদিক পিটিয়েছে তাও আমি দেখিনি। তারপরও যদি সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটে, তাহলে আমি দুঃখ প্রকাশ করছি।’

বরিশালের জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান বলেন, ‘বিষয়টি আমি শনিবার রাতে জেনেছি।’ আহত দুই সাংবাদিকের দায়িত্ব নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমার প্রতি আস্থা রাখুন, ঘটনার সাথে জড়িত অভিযুক্তদের শাস্তির আওতায় আনা হবে।’

বরিশাল মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান বলেন, ‘বর্তমান সঙ্কটময় পরিস্থিতিতে শুধু সাংবাদিক নয়, সাধারণ জনগণের সাথেও দুর্ব্যবহার কাম্য নয়। দুই সাংবাদিককে লাঠিপেটার খবর শুনেছি। অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যদের শনাক্ত করে শাস্তির আওতায় আনা হবে।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর :

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
৪০,৩২১
সুস্থ
৮,৪২৫
মৃত্যু
৫৫৯

বিশ্বে

আক্রান্ত
৫,৯০৯,০০৩
সুস্থ
২,৫৮১,৯৫১
মৃত্যু
৩৬২,০৮১
২০১৮-২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত বাংলার আলো বিডি  
Design & Developed By NewsTheme.Com