মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ১২:২০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ঠাকুরগাঁওয়ে বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী পালন ঠাকুরগাঁওয়ে নির্বাচনী সহিংসতা, গ্রেফতার আতঙ্কে বন্ধ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ঠাকুরগাঁওয়ে মহানবী (সাঃ)’কে নিয়ে কটুক্তি করায় আটক এক  ঠাকুরগাঁওয়ে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর বৃক্ষরোপণ অভিযান ঠাকুরগাঁওয়ে পশুর হাট গুলোতে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অভিযোগ রাণীশংকৈলে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিত্বে পুষ্পমাল্য অর্পণ ঠাকুরগাঁও আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে ভোগান্তি নবাগত ওসির সাথে ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটির সাংবাদকর্মীদের মতবিনিময়  ঠাকুরগাঁওয়ে চাইনিজ রেষ্টুরেন্ট মালিক সমিতির কমিটি গঠন ঠাকুরগাঁওয়ে ট্রাক ট্যাংকলরি কভার ভ্যান শ্রমিক দলের কমিটি ঘোষণা

আদালতের মধ্যেই স্যান্ডেল নিয়ে মারতে গেল আসামিরা (ভিডিওসহ)

বাংলার আলো ডেস্ক
  • হালনাগাদ সময় : বৃহস্পতিবার, ১৯ আগস্ট, ২০২১
  • ১৮৩ বার

আসামিদের ছবি তোলায় পুলিশের সামনে আদালতের মধ্যেই মারতে তেড়ে আসে আসামিরা।

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নে জয়কৃষ্ণপুর গ্রামের খালপাড় এলাকায় চাঞ্চল্যকর গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনার মামলায় আদালতে সাক্ষী দিয়েছেন মামলার বাদী ভুক্তভোগী ওই নারী।

এ সময় আদালতে মামলার আসামিরা উপস্থিত ছিল। আদালতে বাদীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত থেকে বের হয়ে আসার সময় ভিডিও ধারণ করার অপরাধে গণমাধ্যমকর্মীদের ওপর চড়াও হয় আসামিরা। এ সময় আসামিরা পুলিশের উপস্থিতিতে গণমাধ্যমকর্মীদের গালমন্দ, স্যান্ডেল নিয়ে মারতে উদ্যত ও ক্যামেরা ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে।

বৃহস্পতিবার সকালে জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক জয়নাল আবেদিনের আদালতে নির্যাতিতার সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, আদালতে বিচার কার্যের শুরুতেই প্রথম সাক্ষী হিসেবে সাক্ষ্য দেন মামলার বাদী ওই নির্যাতিতা নারী। সাক্ষ্যগ্রহণের সময় আদালতে মামলার ৯ জন আসামি উপস্থিত ছিল। ২০২০ সালের ৪ অক্টোবর রাতে ওই নারী বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ থানায় ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

পরে পুলিশ ৯ জনকে গ্রেফতার করলেও এ মামলার অপর ৪ জন আসামি এখনো পলাতক রয়েছে। ইতোমধ্যে মামলায় ১৩ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করেছে পিবিআই। অভিযোপত্র দাখিলের পর সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে এখন। এর মধ্য দিয়ে পূর্ণাঙ্গভাবে মামলার বিচার কার্য শুরু হলো।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পিপি সিনিয়র অ্যাডভোকেট মামুনুর রশিদ লাবলু। বাদীপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মোল্লা হাবিবুর রসুল মামুন ও আসামিপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট জসিম উদ্দিন বাদল, অ্যাডভোকেট আব্দুল কাইয়ুম ও অ্যাডভোকেট আব্দুস শহিদ।

পাবলিক প্রসিকিউটর সিনিয়র অ্যাডভোকেট মামুনুর রশিদ লাবলু বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মামলার পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের তারিখ আগামী সোমবার ধার্য করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২০২০ সালের ২ সেপ্টেম্বর রাতে ওই নারীর আগের স্বামী তার সঙ্গে দেখা করতে তার বাবার বাড়ি একলাশপুর ইউনিয়নের জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে এসে তাদের ঘরে ঢুকেন। বিষয়টি দেখতে পায় স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী ও দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ার হোসেন দেলু। রাত ১০টার দিকে দেলোয়ারের লোকজন ওই নারীর ঘরে প্রবেশ করে পরপুরুষের সঙ্গে অনৈতিক কাজ ও তাদের কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাকে মারধর শুরু করে। একপর্যায়ে পিটিয়ে নারীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করে।


ভিডিওটি দেখতে ছবিতে ক্লিক করুন :

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরো খবর
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত- বাংলার আলো বিডি
themesba-lates1749691102